ভারত থেকে ঢাকায় এল করোনার টিকা

প্রকাশিত: ১:১০ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২১, ২০২১ 36 views
শেয়ার করুন
টিকা নিয়ে ভারত থেকে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি উড়োজাহাজ আজ বেলা ১১টার দিকে ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন এ তথ্য প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছে।
 
ভারতের উপহার হিসেবে দেওয়া ২০ লাখ করোনার টিকা আজ বৃহস্পতিবার ঢাকায় এসে পৌঁছেছে।
 
ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন সূত্র প্রথম আলোকে জানায়, ভারত উপহার হিসেবে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা উদ্ভাবিত ও ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট প্রস্তুতকৃত ২০ লাখ করোনার টিকা বাংলাদেশকে দিয়েছে। এই টিকা ঢাকায় এসেছে। আজ বেলা একটার দিকে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীর হাতে উপহারের এই টিকা তুলে দেবেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী।
 
ভারতের উপহারের টিকা নিয়ে এয়ার ইন্ডিয়ার উড়োজাহাজ ঢাকার উদ্দেশে রওনা হওয়ার তথ্য নিজেদের ফেসবুক পেজে জানায় ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন। এ–সংক্রান্ত পোস্টে তারা উল্লেখ করে, ‘গন্তব্য বাংলাদেশ! ভারতে তৈরি কোভিড ভ্যাকসিনের চালান। বাংলাদেশের উদ্দেশে রওনা হয়েছে!’
 
একই ফেসবুক পোস্টে কয়েকটি ছবিও দেয় ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন। ছবিতে দেখা যায়, বাংলাদেশগামী এয়ার ইন্ডিয়ার উড়োজাহাজে ভারতের উপহারের টিকা তোলা হচ্ছে।
 
উপহারের টিকার বাইরে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট ও বেক্সিমকো ফার্মার চুক্তি রয়েছে।
 
অনলাইনে নিবন্ধন ছাড়া কাউকে করোনার এই টিকা দেবে না সরকার। রাজধানীর চারটি হাসপাতালে এ মাসের শেষ দিকে টিকাদানের মহড়া বা ড্রাই রান হবে। ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে দেশব্যাপী টিকা কার্যক্রম শুরু করার প্রস্তুতি নিচ্ছে স্বাস্থ্য বিভাগ। শুরুতে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান টিকা দেওয়ার অনুমতি পাচ্ছে না।
 
স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আবদুল মান্নান গতকাল বুধবার বলেছেন, এ মাসের ২৭ বা ২৮ তারিখে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে টিকা দেওয়া শুরু হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী অনুষ্ঠানে ভার্চ্যুয়ালি যোগ দিতে পারেন। এদিন সম্মুখসারির স্বাস্থ্যকর্মী, শিক্ষক, সাংবাদিক, পুলিশসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার ২০ থেকে ২৫ জনকে টিকা দেওয়া হবে। তবে তারিখ ও হাসপাতাল এখনো চূড়ান্ত হয়নি।
 
স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আরও বলেছেন, বেক্সিমকোর মাধ্যমে আসা টিকা ৮ ফেব্রুয়ারির আগে সারা দেশের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছে দেওয়া হবে। তারপরই একযোগে দেশব্যাপী টিকা দেওয়া শুরু হবে। ১৮ বছরের কম বয়সী, অন্তঃসত্ত্বা নারীসহ মোট সাত কোটি মানুষ টিকা পাবে না।